শিরোনাম :

‘বিদ্যুৎ খাতে ৩০ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন’


বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ০৫:০৩ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

‘বিদ্যুৎ খাতে ৩০ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন’

ডেস্ক প্রতিবেদন: বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, আগামী ৭ বৎসরে বিদুৎ খাতে আরো ৩০ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন। বিদ্যুতের সঞ্চালন, বিতরণ ও উৎপাদনে বিনিয়োগের বিপুল সুযোগ সৃজন হয়েছে।

জ্বালানি খাতে এসপিএম, ঢাকা চট্টগ্রাম পাইপ লাইন, রিফাইনারি, নুমানীগড় হতে জ্বালানি প্রকল্পগুলো দৃশ্যমান হতে যাচ্ছে, ফলে জ্বালানি পরিবহনে স্বস্তি আসবে।

প্রতিমন্ত্রী, আজ ঢাকার একটি হোটেলে ‘বাংলাদেশের জ্বালানি খাত উন্নয়নে জার্মান প্রযুক্তি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে বাংলাদেশ-জার্মান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ আয়োজিত ‘বিজনেস নেটওয়ার্কিং” শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য কালে এসব কথা বলেন।

 

তিনি বলেন, জার্মান প্রযুক্তিতে আমাদের আস্থা আছে। জার্মান ও জার্মান কোম্পানিগুলো বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিনিয়োগ করতে পারে। এ খাতের লিংকেজ উপ-খাতগুলোর ভবিষ্যতও উজ্জ্বল। নবায়নযোগ্য জ্বালানিকে উৎসাহিত করতে সোলার রোফটপ সিষ্টেম জনপ্রিয় করতে নেট মিটারিং সিস্টেম চালু করা হচ্ছে। সোলার চার্জিং স্টেশন করা হচ্ছে। মনপুরার একটি গ্রাম ‘সূর্যগ্রাম’ রিনিউয়েবল এনার্জি দ্বারা চালানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী এ সময় বিভিন্ন পত্রিকায় আঙ্কটাডের (ইউনাইটেড ন্যাশনাল কনফারেন্স অন ট্রেড এন্ড ডেবেলপমেন্টের) এলডিসি-২০১৭ প্রতিবেদনটি নিয়ে যে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে তার সমালোচনা করে বলেন, ২০১৪ সালের তথ্য নিয়ে ২০১৭ সালে শেষের দিকে আলোচনা করা কতটা বস্তুনিষ্ঠ-তা বলাই বাহুল্য।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। সেমিনারে সিমেন্স, বিএএসএফ ও সোলশেয়ার তিনটি ভিডিও প্রতিবেদন উপস্থাপন করে জার্মান প্রযুক্তি সক্ষমতা ও সম্ভাবনা তুলে ধরেন।

এ সময় অন্যান্যের মাঝে জার্মান দূতাবাসের উপ-প্রধান গরপযধবষ ঝপযঁষঃযবংরং ও বিজিসিসিআই-এর প্রেসিডেন্ট তৌফিক আলী বক্তব্য রাখেন।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন