শিরোনাম :

ভিএআর প্রযুক্তির সংস্কার আনছে ফিফা


রবিবার, ১ জুলাই ২০১৮, ০১:২৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ভিএআর প্রযুক্তির সংস্কার আনছে ফিফা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি: বিশ্বকাপ ফুটবলে এবারই প্রথম ব্যবহার করা হচ্ছে ভার্চুয়াল অ্যাসিট্যান্ট রেফারি (ভিএআর)। প্রযুক্তির ছোঁয়া লাগায় খেলায় ভুলত্রুটি কমলেও প্রথম থেকেই এটি নিয়ে প্রশ্ন ও হতাশা ছিল। এবার সেই ভিএআর প্রযুক্তির সংস্কার করতে চাইলো ফিফা নিজেই। প্রযুক্তিটির ত্রুটি খুঁজে বের করে সংস্কার করতে ফিফার রেফারিদের কমিটির প্রধান পিয়েরলুইজি কল্লিনাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ভিএআর প্রযুক্তির সীমাবদ্ধতা মেনে নিয়ে আরও উন্নতির প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি।

ফিফার পক্ষ থেকে গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোতে ভিএআর প্রযুক্তির ব্যবহারের একটা প্রতিবেদনও দেওয়া হয়েছে। সেখানে ফিফা বলছে, গ্রুপ পর্বের ৪৮ ম্যাচে মোট ৩৩৫টি ঘটনা ভিএআর প্রযুক্তিতে বিশ্লেষণ করা হয়েছে। যা প্রতিম্যাচে গড়ে প্রায় সাতটি। ১৭টি ঘটনায় ভিএআর রিভিউ নেওয়া হয়েছে। ১৪ বার মাঠের রেফারিরা সাহায্য চেয়েছেন প্রযুক্তির, তিনবার ভিএআর টিম নিজেরাই সাহায্য করেছে ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা রেফারিকে।

মাঠের রেফারিরা ৯৫ শতাংশ ক্ষেত্রে প্রযুক্তির সহায়তা ছাড়াই সঠিক সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ভিএআর প্রযুক্তির সাহায্যে সেগুলো ৯৯.৩ শতাংশ পর্যন্ত সঠিক করা সম্ভব হয়েছে।

গ্রুপ পর্বে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে সার্বিয়ার আলেক্সান্দার মিত্রোভিচ প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলেও তা নজর এড়িয়ে যায় রেফারির। এমন কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক হয়েছে বলেও মানছেন কল্লিনা। প্রযুক্তির ব্যবহারে কিছু ত্রুটি থাকতেই পারে। তবে এটি ব্যবহার করে অন্তত ৯৯.৩ শতাংশ সঠিক সিদ্ধান্ত দেয়া হয়েছে, যা কম নয়। এর ব্যবহারে শুরু থেকেই সতর্ক থেকেছে ফিফা। আর ছোট খাটো পরিবর্তনও করেছে বলে জানান কল্লিনা।

তিনি এও বলেছেন, মাত্র দশমিক ৭ শতাংশ ভুল নিয়ে সবাই মাতামাতি করছেন। এটা একটা গ্রহণযোগ্য সংখ্যা। অথচ এর ব্যবহারে ৯৯ দশমিক ৩ শতাংশই সঠিক সিদ্ধান্ত এসেছে।

যদিও কিছু সময় ক্ষেপন হয়েছে। তবে কল্লিনা মনে করেন, গড়ে প্রতিটি রিভিউয়ে ৮০ সেকেন্ড সময় খরচ হয়। তবে একেবারে সঠিক সিদ্ধান্ত পেতে আরো সময় নেওয়া প্রয়োজন হয়। ১০ সেকেন্ড বেশি সময় নিয়ে যদি তা নির্ভুল করা যায় তবে সেটা ভালো নয় কী? তিনি প্রশ্ন রাখেন।-টেক শহর।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন