শিরোনাম :

ভারতে প্রতিবাদের মুখে ইন্টারনেট ডটঅর্গ


বুধবার, ৬ মে ২০১৫, ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ভারতে প্রতিবাদের মুখে ইন্টারনেট ডটঅর্গ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্কঃ মাত্র কয়েক দিন আগেই ভারতসহ বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেটের সেবা থেকে বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য বিনামূল্যের ইন্টারনেট ব্যবস্থা হিসেবে ইন্টারনেট ডটঅর্গ গ্রহণ করে ফেসবুক। গত বছর থেকে বেশকিছু দেশে যাত্রাও শুরু করে ফেসবুকের এই উদ্যোগ। এর মধ্যে ভারতে যাত্রা শুরু করলে বিতর্কের মুখে পড়েছে এই উদ্যোগ।

ইন্টারনেট ব্যবহারের উপযোগী স্বল্পমূল্যের সব ফোনে বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা দেওয়ার উদ্দেশ্যে ইন্টারনেট ডটঅর্গ চালু হলেও ভারতের নেটিজেনদের অনেকে একে নেট নিউট্রালিটির সাথে সাংঘর্ষিক হিসেবে অভিহিত করেছেন। বিশেষ করে এই উদ্যোগে আরও সেবা যুক্ত করার সুযোগ ফেসবুক সম্প্রতি উন্মুক্ত করে দিলে তা বিতর্ককে আরও ফুসে দিয়েছে। কারণ এতে কিছু কিছু সুনির্দিষ্ট সেবা বিনামূল্যে ব্যবহারের সুযোগ তৈরি হচ্ছে, যেখানে ইন্টারনেটের বিশাল দুনিয়ার অনেক কিছুই এই বিনামূল্যের সেবার আওতায় আসছে না।

ফেসবুক প্রধান মার্ক জুকারবার্গ অবশ্য ইন্টারনেট ডটঅর্গ উদ্যোগের বিরোধীদের সাথে একমত হতে পারছেন না। তিনি তাদের এই প্রতিবাদের জবাব দিয়ে বলেন, ‘ইন্টারনেট চালু রাখার জন্য প্রতিবছর হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ হয়। আর তাই ইন্টারনেটের সব সেবা বিনামূল্যে দেওয়ার ক্ষমতা কোনো অপারেটরেরই নেই। কাজেই ইন্টারনেটের সব সেবা বিনামূল্যে প্রদান করার মডেল কোনোভাবেই টেকসই নয়।’ তিনি বলেন, ‘এর চেয়ে বরং সহজে ব্যবহারযোগ্য, কম খরচে ব্যবহারের উপযোগী ও লো-এন্ড ফোনেও চলতে সক্ষম এমন মৌলিক অনলাইন সেবাগুলোকে বিনামূল্যে ব্যবহারের উপযোগী করে তোলার মডেলটি টেকসই হতে পারে।’

জুকারবার্গের এই যুক্তি অবশ্য সন্তুষ্ট করতে পারেনি প্রতিবাদীদের। তাছাড়া ইন্টারনেট ডটঅর্গের বিনামূল্যের সেবার আওতায় আসতে হলে যেসব শর্ত ফেসবুক দিয়েছে, সেসব শর্তের মধ্যে রয়েছে জাভাস্ক্রিপ্ট, ফ্ল্যাশ, এইচটিটিপিএস সমর্থন না করা। এতে করে ওইসব ওয়েবসাইট বা অনলাইন সেবার সুরক্ষা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে প্রতিবাদকারীরা। ইন্টারনেট ডটঅর্গ ব্যবহারকারীদের ট্র্যাক করার ক্ষমতাও থাকছে ফেসবুকের। এসকল ইস্যুকেই ইন্টারনেটের জন্য মারাত্মক হুমকির বিষয় বলে মনে করছে ভারতের নেটিজেনরা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন