শিরোনাম :

ব্যাঙ্গালুরুকে ২০৯ রানের টার্গেট দিয়েছে হায়দরাবাদ


রবিবার, ২৯ মে ২০১৬, ১০:০৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ব্যাঙ্গালুরুকে ২০৯ রানের টার্গেট দিয়েছে হায়দরাবাদ

ক্রীড়া ডেস্ক: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) নবম আসরের ফাইনালে শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে ব্যাঙ্গালুরুকে ২০৯ রানের টার্গেট দিয়েছে হায়দরাবাদ।

রবিবার বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায় বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হয়।এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সানরাইজার্স হায়দারাবাদ অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। শিরোপা জয়ে দুই দলই নিজেদের সেরা একাদশ নিয়ে মাঠে নামিয়েছে।

ব্যাটিংয়ে নেমে ৩৮ বলে ৬৯ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। ওপেনিং পার্টনার শিখর ধাওয়ান করেন ২৫ বলে ২৮ রান। মোজেস এনরিকস ৫ বল খেলে ৪ রান করে আউট হয়ে যান। ২৩ বলে ৩৮ রানের ঝোড়ো ইনিংস যুবরাজ সিংয়ের। এরপর একের পর এক উইকেট পড়তে থাকে সানরাইজার্সের। দীপক হুডা গোটা আইপিএলেই ব্যর্থ। এদিনও করলেন ৬ বল খেলে ৩ রান। নমন ওঝা রান আউট হলেন ৪ বলে ৭ রান করে। আগের ম্যাচে অন্যতম নায়ক বিপুল শর্মা অবশ্য এদিন রান পেলেন না। করলেন ৩ বলে ৫ রান। তবে, শেষদিকে সানরাইজার্সের ইনিংস টানলেন বেন কাটিং। তিনি অপরাজিত থাকেন ১৫ বলে ৩৯ রান করে। সব মিলিয়ে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২০৮ রান তোলে ডেভিড ওয়ার্নারের দল।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন জর্ডান। দুটো উইকেট অরবিন্দের। এবং একটি উইকেট পেয়েছেন যজুবেন্দ্র চাহাল।

এদিকে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে ফাইনাল নিশ্চিতের ম্যাচে মাঠের বাইরে থাকা হায়দরাবাদের বোলিংস্তম্ভ মুস্তাফিজুর রহমান ফিরেছেন দলে।

ফাইনাল নিশ্চিতের ম্যাচে চোটে পড়ায় মুস্তাফিজের পরিবর্তে কোয়ালিফায়ারে ট্রেন্ট বোল্টকে খেলানো হয়। তবে নিজের নামের প্রতি তেমন সুবিচার করতে পারেননি এই কিউই পেসার। একটি উইকেট পেলেও চার ওভার বলে করে দিয়েছেন ৩৯ রান। ম্যাচ শেষে মুস্তাফিজের বোলিংয়ের অভাব অনুভব করেছেন বলে জানান আইপিএলের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ভুবনেশ্বর কুমার।

গ্রুপ পর্বের দুটি ম্যাচে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে ভালো বল করেছিলেন মুস্তাফিজ। প্রথম ম্যাচে চার ওভার বল করে মাত্র ২৬ রানের বিনিময়ে নিয়েছিলেন ডি ভিলিয়ার্স ও শেন ওয়াটসনের উইকেট। সেই ম্যাচে ২২৭ রানের পাহাড় গড়ে ব্যাঙ্গালোর জিতেছিল ৪৫ রানে। আর ফিরতি লেগের ম্যাচে মুস্তাফিজ তুলে নিয়েছিলেন বিরাট কোহলির উইকেট। মাত্র ১৪ রান করে সাজঘরে ফিরতে হয়েছিল কোহলিকে। আর সে ম্যাচে হায়দরাবাদ ১৫ রানে জিতেছে।

চোটে পড়ার আগে আইপিএলে এ পর্যন্ত টানা ১৫ ম্যাচে খেলেছেন হালের বোলিং বিস্ময় মুস্তাফিজুর রহমান। ১৬ উইকেট নিয়ে শীর্ষ দশ বোলারের তালিকায় ছয় নম্বরে আছেন মুস্তাফিজ। শুধু তাই নয়, আইপিএলের সর্বোচ্চ ১০ ম্যাচ খেলা বোলারদের মধ্যে তাঁর ইকোনমি সবচেয়ে কম, ৬.৭৩।

এমএল

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন