শিরোনাম :

জিম্বাবুইয়ানদের লক্ষ্য ২৭২ রান


রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ০৬:৩০ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

জিম্বাবুইয়ানদের লক্ষ্য ২৭২ রান

ঢাকা: চেনা প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। রোববার (২১ অক্টোবর) ঘরের মাঠে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুইয়ানদের মুখোমুখি হয় টাইগাররা। টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। ইমরুল কায়েসের দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি আর সাইফউদ্দিনের হাফ-সেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে টাইগারদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২৭১ রান।

ব্যাটিংয়ে নেমে তৃতীয় ওভারের শেষ বলে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন ওপেনার লিটন দাস। তবে বল মাটিতে স্পর্শ করায় জীবন পান এই ওপেনার। সেটা কাজে লাগাতে পারেননি। মিস টাইমিংয়ে টেন্ডাই চাতারার করা ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলে দলীয় ১৬ রানে সেফাস ঝুয়াওর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন লিটন দাস (৪)। এরপর ব্যাটিংয়ে নামেন অভিষিক্ত ফজলে রাব্বি। চাতারার করা ওভারের শেষ বলে শূন্য হাতেই ফেরেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

আরেক ওপেনার ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ব্যাটিংয়ে যোগ দেন মুশফিকুর রহিম। তবে দলীয় ৬৬ রানে ব্র্যান্ডন মাভুতার বলে উইকেটরক্ষক ব্র্যান্ডন টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১৫ রানে ফেরেন মুশফিক। এরপর ইমরুলের সঙ্গে যোগ দেন মোহাম্মদ মিথুন। দুজনের ব্যাটে দুর্দান্ত গতিতেই এগুচ্ছিল টাইগাররা। তবে কাইল জার্ভিসের করা ২৮তম ওভারের দ্বিতীয় বলে টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ৩৭ রানে ফেরেন মিথুন। এর আগে দু’জন মিলে ৭১ রানের জুটি গড়েন। একই ওভারের শেষ বলে টেলরের হাতেই ক্যাচ দিয়ে শূন্য হাতে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ।

এরপর জার্ভিসের করা ৩০তম ওভারের শেষ বলে টেইলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১ রানেই ফেরেন মিরাজ। এরপর সাইফউদ্দিনকে সঙ্গে করে এগিয়ে যান ইমরুল। ৪২তম ওভারের প্রথম বলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতক তুলে নেন ইমরুল। ৪৯তম ওভারে বিদায় নেন ইমরুল, তার আগে ১৪০ বলে ১৩টি চার আর ছয়টি ছক্কায় তিনি করেন ইনিংস সর্বোচ্চ ১৪৪ রান। এটি তার ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসও। এরপর সাইফউদ্দিন নিজের প্রথম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন। ইনিংসের শেষ ওভারে বিদায় নেন তিনি। তার আগে সাইফের ব্যাট থেকে ৬৯ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় আসে ৫০ রান।

ইনজুরির কারণে এই সিরিজে নেই ওপেনার তামিম ইকবাল ও দেশসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এই ম্যাচে অভিষেক হয় ৩০ বছর বয়সী অলরাউন্ডার ফজলে মাহমুদ রাব্বির। একাদশে সুযোগ হয়নি জ্বর থেকে সেরে উঠা পেসার রুবেল হোসেনের।

এর আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৬৯টি ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। যেখানে ঘরের মাঠে বাংলাদেশ জিতেছে ২৭টি ও দেশের বাইরে জিতেছে ১৩টি ম্যাচ। এ নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের হয়ে বাংলাদেশের মাটিতে নয়টি সিরিজ খেলছেন হ্যামিলটন মাসাকাদজা। এলটন চিগাম্বুরাও এদেশের মাটিতে নবম সিরিজ খেলছেন। এছাড়াও ব্র্যান্ডন টেইলর খেলছেন সাতবার।

বাংলাদেশ একাদশ: মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, ফজলে মাহমুদ রাব্বি, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মোহাম্মদ মিথুন, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাজমুল ইসলাম অপু ও মোস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ের একাদশ: হ্যামিলটন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), সেফাস ঝুয়াও, ক্রেইগ আরভিন, ব্র্যান্ডন টেইলর (উইকেটরক্ষক), শেন উইলিয়ামস, পিটার মুর, সিকান্দার রাজা, ডোনাল্ড থিরিপানো, ব্র্যান্ডন মাভুতা, কাইল জার্ভিস, টেন্ডাই চাতারা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন