শিরোনাম :

বোলিংয়ে দেশি দাপট


মঙ্গলবার, ১৫ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:১৯ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বোলিংয়ে দেশি দাপট

ঢাকা: বিপিএলে ঢাকার প্রথম পর্বের খেলা শেষে আজ সিলেটে শুরু দ্বিতীয় পর্ব। প্রথম পর্ব শেষে ঢাকা ডায়নামাইটস একমাত্র দল হিসেবে অপরাজিত আছে। গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সের শুরুটা এবারো ভালো হয়নি। প্রথম পাঁচ ম্যাচের তিনটাতেই হেরেছে মাশরাফির দল। দল ভালো করতে না পারলেও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে এগিয়ে গতবারের চ্যাম্পিয়ন দলটির ক্রিকেটাররা। রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বল হাতে দারুণ করছেন। এখন পর্যন্ত ১০ উইকেট নিয়ে বিপিএলের সেরা বোলার এই পেসার। বোলারদের সেরা দশের বাংলাদেশি।

তবে ব্যাটসম্যানদের তালিকায় পিছিয়ে স্থানীয়রা। স্থানীয়দের চেয়ে বিদেশিদের দাপটই ছিল সেখানে বেশি। ক্রিস গেইল, ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথরা ব্যর্থ হলেও মান রাখছেন রাইলি রুশো, নিকোলাস পুরান, হজরতউল্লাহ জাজাইয়ের মতো প্রতিশ্রুতিশীল ক্রিকেটাররা।
স্থানীয়দের মধ্যে কেউ একদমই ভালো খেলেননি- তা নয়। জুনায়েদ সিদ্দিকী, রনি তালুকদার মোটামুটি শুরু থেকেই ভালো খেলছেন। ঢাকা পর্বের শেষ ম্যাচে মুশফিকুর রহীম ৭৫ রান করে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন। তবে জাতীয় দলের তারকা ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, সাকিব আল হাসান, আরিফুল হক ও মোহাম্মদ মিঠুন- কারো ব্যাটেই রান নেই। জাতীয় দলের বাইরে থাকা এনামুল হক বিজয়, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন আর নাসির হোসেনরা আশার আলো জ্বালতে পারেননি একটুও। এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি রান এসেছে রংপুর রাইডার্সের রাইলি রুশোর ব্যাট থেকে। ৫ ম্যাচে এ ২৯ বছর বয়সী দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানের সংগ্রহ ২৩০ রান। রান সংগ্রহে দ্বিতীয় স্থানটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের নিকোলাস পুরানের। সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলা পুরান তিন ম্যাচে করেছেন ১৬৫ রান। তৃতীয় স্থানটি ঢাকা ডায়নামাইটসের আফগান ওপেনার হজরতউল্লাহ জাজাইয়ের দখলে। আগের ম্যাচে ৭৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছেন মুশফিকুর রহীম। এখন পর্যন্ত ৪ ম্যাচে তার রান ১৩৯। খুলনা টাইটান্সের বাঁহাতি ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী রান সংগ্রহে পঞ্চম। মুশফিকুর রহীম ছাড়া বর্তমান জাতীয় দলের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সেরা দশে আছেন শুধু মোহাম্মদ মিঠুন। রংপুর রাইডার্সের এ মিডল অর্ডার পাঁচ খেলায় অংশ নিয়ে তুলেছেন ৯৮ রান। এ ছাড়া তারকা ব্যাটসম্যানদের প্রায় সবাই নিষ্প্রভ। জাতীয় দলের মধ্যে মুশফিকুর রহীম ছাড়া সবচেয়ে বেশি রান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের। খুলনা টাইটান্স ক্যাপ্টেন ৪ খেলায় করেছেন ৭৬। এ ছাড়া তামিম চার খেলায় করেছেন ৬০। লিটন দাসের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। তিন খেলায় জাতীয় দলের এই ওপেনারের সংগ্রহ ১০। সৌম্য সরকারের সংগ্রহ মাত্র ৩৩। স্টিভেন স্মিথের জায়গায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে নেতৃত্ব দেয়া ইমরুল কায়েসও নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন। দেশ সেরা অলরাউন্ডার সাকিবও নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি। এখন পর্যন্ত তার ব্যাট থেকে আসেনি কোনো ঝড়ো ইনিংস। তবে বোলিংটা খারাপ করছেন না সাকিব। বোলিংয়ে সবচেয়ে বেশি আলো ছড়াচ্ছেন টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা। টাইগারদের এই ওয়ানডে অধিনায়ক ৫ খেলায় ২০ ওভার বোলিং করে পেয়েছেন ১০ উইকেট। সেরা বোলিং ৪/১১। প্রথম পর্বে ৯ উইকেট নিয়ে যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন দুজন- চিটাগাং ভাইকিংসের ৩৪ বছর বয়সী দক্ষিণ আফ্রিকান ফাস্ট মিডিয়াম বোলার রবি ফ্রাইলিঙ্ক আর রংপুর রাইডার্সের পেসার শফিউল ইসলাম। মাশরাফির চেয়ে একটু পেছনে থাকলেও মোটামুটি ধারাবাহিকভাবে ভালো বোলিং করেছেন সাকিব আল হাসানও। এককভাবে না হলেও ঢাকা ডায়নামাইটস অধিনায়ক ও বাঁহাতি স্পিনার সাকিব, সিলেট সিক্সার্সের তাসকিন আহমেদ আর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সাইফউদ্দিন প্রত্যেকে ৭ উইকেট করে পেয়ে যৌথভাবে উইকেট প্রাপ্তিতে তিন নম্বরে। মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেলা তাসকিন আহমেদ এবার ছন্দ ফিরে পেয়েছেন। শেষ দুই ম্যাচে তাসকিন বেশ ভালো বোলিং করেছেন। এ ছাড়া আরেক পেসার রুবেল হোসেনও মোটামুটি ফর্মে আছেন। রংপুর রাইডার্সের ফরহাদ রেজা ও চিটাগাং ভাইকিংসের খালেদ আহমেদের সঙ্গে সমান ৬ উইকেট করে পেয়ে উইকেট প্রাপ্তিতে যৌথভাবে চার নম্বরে আছেন রুবেল। প্রথম পর্বে হ্যাটট্টিক নিয়ে নজর কাড়েন ঢাকার অভিষিক স্পিনার আলিস আল ইসলাম।
পাঁচ সেরা বোলার
নাম ম্যাচ রান উই. সেরা ইকো ৪
মাশরাফি (রংপুর) ৫ ১১৪ ১০ ৪/১১ ৫.৭০ ১
ফ্রাইলিংক (চিটাগাং) ৪ ১২১ ৯ ৪/১৪ ৭.৫৬ ১
শফিউল (রংপুর) ৫ ১২৫ ৯ ৩/৩৫ ৭.৭৩ ০
সাইফউদ্দিন (কুমিল্লা) ৪ ৮৬ ৭ ৩/৪৫ ৭.৮১ ০
তাসকিন (সিলেট) ৩ ৯৭ ৭ ৪/২৮ ৮.০৮ ১
পাঁচ সেরা ব্যাটসম্যান
নাম ম্যাচ রান স্টাইক. সর্বোচ্চ ৫০ ৪/৬
রাইলি রুশো (রংপুর) ৫ ২৩০ ১১৫ ৮৩ ২ ২০/৭
পুরান (সিলেট) ৩ ১৬৫ ১৫৭ ৭২ ২ ৯/১৪
জাজাই (রংপুর) ৪ ১৪০ ১৬৬ ৭৮ ২ ৮/১২
মুশফিকুর (চিটাগাং) ৪ ১৩৯ ১৩৩ ৭৫ ১ ১০/৬
জুনায়েদ (খুলনা) ৪ ১০৭ ১৩৫ ৩৩ ০ ১০/৬

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন