শিরোনাম :

আবাহনীর জয় দিয়ে শুভ সূচনা


মঙ্গলবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৬:৫৫ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

আবাহনীর জয় দিয়ে শুভ সূচনা

ঢাকা: সামান্য পুঁজি নিয়েও লড়াই জমিয়ে তুলতে পারল প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। পারতে হলে শুরুতেই বিকেএসপিকে জোরালো ধাক্কা দেওয়া জরুরি ছিল। হ্যাটট্রিকে সেই জরুরি কাজটিই করলেন পেসার মানিক খান। মাত্র ১১১ রানের পুঁজি নিয়েও তাই ফতুল্লায় ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল) টি-টোয়েন্টির প্রথম দিনের সবচেয়ে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচটি উপহার দিতে পারল দোলেশ্বর।

অবশ্য ম্যাচটি সুপার ওভারে নিয়ে গিয়েও শেষরক্ষা হয়নি তাদের। নবাগত বিকেএসপির ৬ রান তাড়ায় তারা ৪ রানে থেমে হেরেছে ২ রানে। একই মাঠে সকালের বৃষ্টিতে ১৩ ওভারে সীমিত ম্যাচে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের ১১৫ রান তাড়ায় ৫ উইকেটে জিতেছে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব। নিউজিল্যান্ড থেকে মাত্রই ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি করে ফেরা সাব্বির রহমানের ফিফটিতে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দেড় শ ছোঁয়া আবাহনীও জয় দিয়ে শুভ সূচনা করেছে। ডিপিএলের ওয়ানডে আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ২৫ রানে হারানোর পথে গুরুত্বপূর্ণ দুটো উইকেট নিয়েছেন ৪৩ বলে ম্যাচ সর্বোচ্চ ৫৮ রানের ইনিংস খেলা সাব্বিরও। একই মাঠে দিনের প্রথম ম্যাচে অধিনায়ক নুরুল হাসানের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ের পর পেসার শহীদুল ইসলামের দারুণ বোলিংয়ে জিতেছে শেখ জামাল ধানমণ্ডিও। খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির বিপক্ষে তাদের জয় ১১ রানের।

লো-স্কোরিং ম্যাচের দিন ‘হাই-স্কোরিং’ বলতে হয় শেখ জামালের ম্যাচটিকেই। চতুর্থ উইকেটে নাসির হোসেন আর অধিনায়ক নুরুলের ৬৫ রানের পার্টনারশিপ জামালকে এনে দেয় ভিত। ২৭ বলে এক বাউন্ডারি ও দুই ছক্কায় ৩৪ রান করে নাসির আউট হয়ে গেলেও হাল ধরেছিলেন নুরুল। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ২৮ বলে এক বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায় ৪৩ রান করে যান তিনি। জামালের ১৬৯ রানের দারুণ জবাব দিচ্ছিল খেলাঘরও। ৫.৩ ওভারেই ৪১ রান উঠে যাওয়ার পর ওপেনার সাদিকুর রহমানকে (১৬ বলে ২১) ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন শহীদুল। তবে মাহিদুল ইসলামকে (৩৪) নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৭৪ রানের জুটিতে বরং খেলাঘরের জয়ের সম্ভাবনাই উজ্জ্বল করে তুলছিলেন রবিউল ইসলাম (৫১ বলে ৭ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৬৯)। বাঁহাতি স্পিনার ইলিয়াস সানী তাঁকে ফেরানোর পরের ওভারেই শহীদুলের জোড়া শিকারে ম্যাচ ঘোরায় জামাল। ৩৬ রানে ৪ উইকেট নেওয়া শহীদুলের ওই ওভারে দেওয়া চাপেই খেলাঘরের জন্য শেষ ওভারে জয়ের সমীকরণ (৬ বলে ১৯ রান) কঠিন হয়ে যায়। প্রথম বলেই ম্যাচ সেরা শহীদুল নিজের চতুর্থ উইকেট তুলে নেওয়ার পর মাত্র ৭ রান তুলে ১৫৮ রানে থামে খেলাঘর।

নিউজিল্যান্ড থেকে ফেরার দিন চারেকের মধ্যেই আবাহনীর ত্রাণকর্তার ভূমিকায় নামতে হয় সাব্বির রহমানকেও। কারণ স্কোরবোর্ডে ৬ রান উঠতে না উঠতেই দুই ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার ও নাজমুল হোসেনকে (শান্ত) হারায় তারা। সেখান থেকে অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেনকে (১৮ বলে ২৩) নিয়ে ৫৩ রানের পার্টনারশিপে দলকে বিপর্যয় থেকে বের করে আনা সাব্বির চতুর্থ উইকেটে জাহিদ জাভেদকে (৩৩ বলে ৪৪) নিয়ে গড়েন ৫৮ রানের আরেকটি জুটি। ৫ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৫৮ রানের ইনিংস খেলে যাওয়া সাব্বির পরে স্পিনে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে পরপর দুই ওভারে নিয়েছেন ২ উইকেটও। দ্বিতীয় উইকেটে ওপেনার মিজানুর রহমানকে (৩৮ বলে ৩০) নিয়ে ৬৮ রানের পার্টনারশিপে আবাহনীর উদ্বেগ বাড়িয়ে যাচ্ছিলেন ব্রাদার্সের ইয়াসির আলী। সবশেষ বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে দারুণ ব্যাটিং করা ইয়াসিরকে (৩১ বলে ৪১) মোসাদ্দেকের ক্যাচ বানিয়ে সেই উদ্বেগ দূর করা সাব্বির নিজের পরের ওভারে বোল্ড করেছেন হাবিবুর রহমানকেও (৪)। সেই সঙ্গে বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর (৩/২৬) কার্যকারিতায় শেষ পর্যন্ত সহজ জয়ই পায় টি-টোয়েন্টিরও শিরোপাপ্রত্যাশী আবাহনী।

অবশ্য প্রথম দিনেই সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফতুল্লায় সুপার ওভারে যাওয়া ম্যাচটিই। যাতে বারবার বদলেছে ম্যাচের রং। সুপার ওভারে দোলেশ্বরের ফরহাদ রেজার প্রথম দুই বল থেকে ৬ রান নেওয়া বিকেএসপি পরের দুই বলে হারায় দুই উইকেট। তাতে জেতার জন্য ৭ রানের লক্ষ্য পায় দোলেশ্বর। কিন্তু ব্যবধান গড়ে দেন বিকেএসপির বোলার সুমন খান। তাঁর প্রথম চার বল থেকে আসে চার রান। শেষ দুই বলে দুই উইকেট তুলে নিয়ে দলকে নাটকীয় জয়ে আসরে দারুণ শুরু এনে দেন এই পেসার। এর আগে ১৮ রানে ৩ উইকেট নিয়ে এই বোলারই দোলেশ্বরকে ১১১ রানে আটকে রাখায় মূল ভূমিকা রাখেন। এরপর মানিকের হ্যাটট্রিকে ১৬ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে ছিল বিকেএসপিও। সেখান থেকে শামীম হোসেন (৩৬ বলে ৪৫) ও আকবর আলীর (৪৪ বলে ৪২) ৮০ রানের পার্টনারশিপে জয় দেখতে পাওয়া বিকেএসপির হারের পথও খুলে যায় ৩ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে। তবে শেষ বলে অল আউট হওয়ার আগে দোলেশ্বরের স্কোরও ছুঁয়ে ফেলে তারা।

তাতে সুপার ওভারে যাওয়া ম্যাচে শেষ হাসিও হাসে বিকেএসপি। দলের হারেও ম্যাচ সেরার সান্ত্বনা পুরস্কার দোলেশ্বরের মানিকের।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন