শিরোনাম :

শ্রীমঙ্গলে ধর্মঘটে আটকা পড়েছে শতাধিক পর্যটক


শনিবার, ৭ জানুয়ারি ২০১৭, ০৭:৫৯ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: বিজিবি সদস্য ও পরিবহন শ্রমিকের সাথে কথাকাটাকাটির জের ধরে সৃষ্ট সংঘর্ষে দোকানপাট গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে পর্যটন অধ্যশিত এলাকা শ্রীমঙ্গলে বেড়াতে আসা পর্যটকরা বর্তমানে আতঙ্কিত রয়েছেন।

আটকা পড়েছেন বেড়াতে আসা প্রায় তিন শতাধিক পর্যটক। বিভিন্ন হোটেল, গেস্ট হাউজ, রেষ্ট হাউজ ও গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট এ বেড়াতে আসা এসব পর্যটকরা বর্তমানে ভয়ে দিন কাটাচ্ছেন হোটেলের কক্ষে। বাহিরে বের হচ্ছেন না কেউই।

শনিবার (৭ জানুয়ারি) সকাল ৬ টা থেকে ধর্মঘট চলছে। গ্র্যান্ড সুলতান টি রির্সোট এর গন সংযোগ কর্মকর্তা পলাশ চৌধুরি জানান, প্রাইভেট গাড়ি ও শ্রীমঙ্গল থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকা গামি বাস চলাচল বন্ধ থাকায় তিন শতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন।

তবে পর্যটকরা জানান নিরাপদে আছেন কোন ধরণের অসুবিধা হচ্ছেনা। কিন্তু যানবাহন চলাচল বন্ধ হওয়ার কারনে পর্যটন স্থানগুলোতে বেড়াতে পারছেন না।

উল্লেখ্য, গতকবাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে শ্রীমঙ্গল উপজেলার ভানুগাছ ষ্ট্যান্ড এলাকায় বিজিবি চালকের সাথে এক পরিবহন শ্রমিকের কথা কাটাকাটি এবং হাতাহাতি হয়।

এ খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল সেক্টরের বেশ কিছু বিজিবি সদস্য এসে পরিবহন শ্রমিকদের ধাওয়া করে। পাল্টা ধাওয়া করে শ্রমিকরা।

এ সময় বিজিবি সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে ১৫ রাউন্ড ফাকা গুলি ছুঁড়ে এবং উভয় পক্ষের মাঝে লাঠিসোটা, ইট পাটকেল নিয়ে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।

এতে সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তখন ভানুগাছ রোড ও কলেজ রোডে প্রায় শতাধীক গাড়ী ও দোকান ভাংচুর করা হয়েছে। ইটপাটকেল, লাটির আঘাত ও আত্মরক্ষার্থে দৌড়াদৌড়িতে চারজন গুলিবিদ্ধ সহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন ।

এদিকে শ্রীমঙ্গলে রাত থেকে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য পুলিশের প্রস্তুতি লক্ষ করা যায়।


টিএ/এমকে

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন