শিরোনাম :
   বরগুনায় শ্রেণিকক্ষে শিক্ষিকাকে গণধর্ষণ: গ্রেপ্তার ২    বাউবি’তে গবেষণা প্রস্তাবনা প্রণয়ন কৌশল তৈরি কর্মশালা    বরগুনায় বাণিজ্যিকভাবে পশু খামার চালু    সরকার হটানোর ষড়যন্ত্র করছেন খালেদা জিয়া : ওবায়দুল কাদের    ফিরে দেখা ভয়াল ২১ আগস্ট: প্রিয় নেত্রীর জীবন বাঁচাতে শহীদ হয়েছেন সেন্টু    সাপাহারে খায়রুজ্জামান লিটনের ত্রাণ বিতরণ    ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত    বরিশালে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন    বঙ্গবন্ধু নিয়ে ফেসবুকে কটুক্তি: কক্সবাজার সরকারি কলেজের ৫ শিক্ষার্থী বহিস্কার    কক্সবাজারে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ২ যাত্রী নিহত

রাজন হত্যা মামলার রায় আজ


মঙ্গলবার, ১১ এপ্রিল ২০১৭, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

রাজন হত্যা মামলার রায় আজ

ডেস্ক প্রতিবেদন: সিলেটের চাঞ্চল্যকর শিশু সামিউল আলম রাজন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের করা আপিল ও ডেথ রেফারেন্সের রায় আজ।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করবেন।

এর আগে গত ১২ মার্চ রাজন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের করা আপিল ও ডেথ রেফারেন্সের শুনানি শেষে রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য করেন হাইকোর্ট।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জহিরুল হক জহির ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আতিকুল হক সেলিম।

গত ৩০ জানুয়ারি রাজন হত্যা মামলার আপিল ও ডেথ রেফারেন্সের শুনানি শুরু হয়। ২০১৫ সালের ১০ নভেম্বর রাজন হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে এসে পৌঁছায়। পরে প্রধান বিচারপতির নির্দেশে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পেপারবুক প্রস্তুত করা হয়।

সাধাণত মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ফাঁসির রায় কার্যকরের আগে হাইকোর্টের অনুমতির প্রয়োজন হয়। যা ডেথ রেফারেন্স নামে পরিচিত। ডেথ রেফারেন্সের পাশাপাশি বিচারিক আদালতের ফাঁসির রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা আপিল দায়ের করেন।

২০১৫ সালের ৮ নভেম্বর রাজন হত্যা মমালায় আসামি কামরুলসহ চারজনকে ফাঁসির আদেশ দেন আদালত।

২০১৫ সালের ৮ জুলাই চুরির অপবাদে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের কুমারগাঁও বাসস্ট্যান্ডসংলগ্ন শেখপাড়ায় নির্যাতন করে হত্যা করা হয় সিলেটের জালালাবাদ থানা এলাকার বাদেয়ালি গ্রামের সবজি বিক্রেতা শিশু রাজনকে। লাশ গুম করার সময় ধরা পড়ে একজন। পরে পুলিশ বাদী হয়ে জালালাবাদ থানায় মামলা করে। ফেসবুকে প্রচারের উদ্দেশ্যে নির্যাতনের ভিডিও চিত্র ধারণ করে নির্যাতনকারীরা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন