শিরোনাম :

শনিবার মুক্তামনির অস্ত্রোপচার


মঙ্গলবার, ৮ আগস্ট ২০১৭, ০৩:৪২ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

শনিবার মুক্তামনির অস্ত্রোপচার

ডেস্ক প্রতিবেদন: ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাতক্ষীরার শিশু মুক্তামনির হাতে দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার আগামী শনিবার শুরু হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে ‘হেমানজিওমা’ রোগে আক্রান্ত মুক্তামনির বায়োপসি রিপোর্টে রক্তনালীতে টিউমার (হেমানজিওমা) ধরা পড়ার পর এ নিয়ে পর্যালোচনা করে হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন ও প্রধান ডা. আবুল কালাম আজাদ সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তারা সাংবাদিকদের বলেন, ‘আগামী শনিবার সকালে মুক্তামনির হাতে দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচার শুরু হবে। অস্ত্রোপচারের সময় তার জীবন রক্ষার্থে হাতটি কেটে ফেলা হতে পারে। তবে আমরা চেষ্টা করবো না কাটতে’।

ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, তার রোগটি কোনো ‘বিরল রোগ’ নয়।‌ এ ধরনের রোগ অনেকেরই হয়ে থাকে।

মঙ্গলবার সকালে মুক্তামনির বায়োপসি রিপোর্টে রক্তনালীতে টিউমার ধরা পড়ে। এ রোগটিকে ইংরেজিতে বলে ‘হেমানজিওমা’। বায়োপসি রিপোর্ট দেখে গঠিত ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড দুপুরে আলোচনায় বসেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, মুক্তামনির বায়োপসি রিপোর্টে ক্যান্সারের কোনো লক্ষণ নেই। তবে অস্ত্রোপচারের সময় তার রক্তপাতের আশঙ্কা রয়েছে।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাশদাহ গ্রামের দক্ষিণ কামারবায়সা গ্রামের ইব্রাহিম হোসেন ও আসমা খাতুন দম্পতির মেয়ে মুক্তামনি। এ রোগে তার ডান হাত ফুলে যায়। সাদা রঙের শত শত পোকা ঘুরে বেড়াচ্ছে সেই ফুলে যাওয়া অংশে। শরীরের অসহ্য ব্যথা ও যন্ত্রণায় মুক্তামনি বসতেও পারে না। এরপর হাতে পচন ধরে। হাতের সঙ্গে বুকের একাংশেও ছড়িয়ে পড়েছে রোগটি। দীর্ঘ নয় বছরেও মুক্তার রোগ ধরতে পারেননি চিকিৎসকরা।

এক পর্যায়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের নির্দেশনায় একটি প্রতিনিধি দল তার বাড়িতে গিয়ে শিশুটিকে নিয়ে আসেন। ঢামেক হাসপাতালে ভর্তির পর মুক্তামনির চিকিৎসায় ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

গত ১১ জুলাই মুক্তামনির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন