শিরোনাম :
   জাগো বাংলাতে সাংবাদিকতায় চাকরির সুযোগ    ইরানকে নিয়ে সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন হাসান রুহানি    রোহিঙ্গা সংকট: নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান    সু চিকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে ফৌজদারি আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর সুপারিশ    আজকের রাশিফল: ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার, ২০১৭    নিজেদের মাঠে বেটিসের কাছে হেরে গেল রিয়াল মাদ্রিদ    মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত: জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান    রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ২৬২ কোটি টাকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র    রোহিঙ্গা হত্যার প্রতিবাদে বরিশালে ধ্রুবতারার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত    সাপাহারে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাগুলো  দ্রুত সংস্কারের দাবী এলাকাবাসীর 

হত্যার পর চাটনি দিয়ে মায়ের হৃদপিণ্ড খেল ছেলে!


বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭, ০২:৫৪ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

হত্যার পর চাটনি দিয়ে মায়ের হৃদপিণ্ড খেল ছেলে!

ডেস্ক প্রতিবেদন: হরর ছবির দৃশ্যকেও হার মানাবে এটি! প্রিয় মাকে কেউ খুন করে তার হৃদপিণ্ড খেতে পারে! এমনই এক বীভত্স ঘটনা ঘটেছে ভারতে।

পুনের ২৭ বছর বয়সী এক যুবক রাগে উন্মত্ত হয়ে নিজের মায়ের উপর ছুরি চালায়। মায়ের মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পরও থামেনি তার পাষণ্ডতা। মায়ের হৃদপিণ্ড কেটে টেবিলে রাখে। তারপর চাটনি ও মরিচের গুড়া মিশিয়ে খায়।

সোমবার মধ্যদুপুরে এ ঘটনাটি ঘটে ভারতের পুনের কোলহাপুরে। মাকে হত্যা ও চাটনি দিয়ে তার হৃদপিণ্ড খাওয়ার এক ঘণ্টা পর ঘর থেকে ঠান্ডা মাথায় বের হয়ে যায় যুবক। ওই সময় নাকি তার হাত দিয়ে রক্তের ফোটা ঝরছিল।

শাহুপুরি পুলিশ সুনীল কুচাকুর্নি নামে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। তারারাণী চক এলাকার বাসিন্দা সুনীলের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে। ছেলের হাতে নির্মমভাবে খুন হওয়া মায়ের নাম ইয়েলাভা (৬৫) বলে জানা গেছে।শাহুপুরি পুলিশ স্টেশনের সিনিয়র ইন্সপেক্টর সঞ্জয় মুরে সাংবাদিকদের জানান, ‘সুনীল একটি নির্মাণ সাইটে শ্রমিকের কাজ করতো। বিবাহিত সুনীলের তিনটি সন্তান রয়েছে। সন্তানদের নিয়ে স্ত্রী বর্তমানে মুম্বাইয়ে মামার বাড়িতে আছে।’

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, ঘটনার দিন মদ্যপ অবস্থায় ছিল সুনীল। প্রথমে এক প্রতিবেশীর বাসায় খাবার চায়। সেখানে না পেয়ে নিজেদের বাসায় যায় সে।

তিনি জানান, বাসায় ফিরে মায়ের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করে দেয় সুনীল। এক পর্যায়ে মাকে উপর্যুপুরি ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। মায়ের হৃদপিণ্ড প্লেটে তুলে নেয়।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা সেখানে চাটনি ও মরিচের গুড়া পেয়েছি। আমাদের ধারণা- সে হৃদপিণ্ডের অংশবিশেষ খেয়েছে। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং বিস্তারিত তদন্ত চালানো হচ্ছে।’

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন