শিরোনাম :
   জাগো বাংলাতে সাংবাদিকতায় চাকরির সুযোগ    ইরানকে নিয়ে সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন হাসান রুহানি    রোহিঙ্গা সংকট: নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান    সু চিকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে ফৌজদারি আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর সুপারিশ    আজকের রাশিফল: ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার, ২০১৭    নিজেদের মাঠে বেটিসের কাছে হেরে গেল রিয়াল মাদ্রিদ    মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত: জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান    রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ২৬২ কোটি টাকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র    রোহিঙ্গা হত্যার প্রতিবাদে বরিশালে ধ্রুবতারার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত    সাপাহারে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাগুলো  দ্রুত সংস্কারের দাবী এলাকাবাসীর 

কলেজছাত্রীকে ৫ বন্ধু মিলে ধর্ষণ


বৃহস্পতিবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৯:২৪ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

কলেজছাত্রীকে ৫ বন্ধু মিলে ধর্ষণ

ডেস্ক প্রতিবেদন: কুড়িগ্রামের রাজীবপুর ডিগ্রি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের এক ছাত্রীকে বাসায় আটকে রেখে ৫ বন্ধু মিলে গণধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে প্রথমে রাজীবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে অবস্থার অবনতি ঘটলে জামালপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ধর্ষণের শিকার ওই কলেজছাত্রীর বাড়ি জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ডাংধরা গ্রামে।এ ঘটনায় কলেজছাত্রীর চাচা রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে রাজীবপুর থানায় ৬ জনকে আসামি করে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলার ৪নং আসামি আলামিনকে গ্রেফতার করেছে।

জানা গেছে, রাজীবপুর উপজেলার কাচারি পাড়া গ্রামের মাহবুবুর রহমানের ছেলে খোরশেদ আলী ওই কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে মোবাইলে প্রেমের ফাঁদ তৈরি করে। এ সম্পর্কের সূত্র ধরে ৫ সেপ্টেম্বর বিকালে উপজেলার কাচারি পাড়া গ্রামের একটি বাড়িতে ওই ছাত্রীকে ডেকে আনে খোরশেদ আলী। এরপর পরিকল্পিতভাবে তার বন্ধু একই গ্রামের আরিফুল ইসলাম বাড়িতে নিয়ে যায়।

ওই বাড়ির একটি কক্ষে খোরশেদ আলী ও তার ৫ বন্ধু মিলে মেয়েটির মুখে কাপড় বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের এক পর্যায়ে মেয়েটি অচেতন হয়ে তার রক্তক্ষরণ শুরু হলে খোরশেদ আলীর দুই বন্ধু আলামিন ও আরিফুল ইসলাম কলেজ ছাত্রীকে রাজীবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে রেখে পালিয়ে যায়।এ ব্যাপারে রাজিবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পৃথ্বীশ কুমার সরকার বলেন, আমরা কলেজ ছাত্রীর চাচার দায়ের করা অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার অভিযোগ পেয়ে মামলার ৬ আসামির মধ্যে আলামিনকে গ্রেফতার করেছি। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন