শিরোনাম :

মাথায় আঘাতে রূপার মৃত্যু, মিলেছে ধর্ষণের আলামত


বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মাথায় আঘাতে রূপার মৃত্যু, মিলেছে ধর্ষণের আলামত

ডেস্ক প্রতিবেদন: টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজ ছাত্রী রূপাকে ধর্ষণের পর হত্যার শিকার রূপার ময়নাতদন্ত রিপোট জমা দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকেরা প্রতিবেদনটি জেলা সিভিল সার্জনের কাছে জমা দিয়েছেন।ময়নাতদন্তে উল্লেখ করা হয়, মাথায় আঘাতের কারণে রূপার মৃত্যু হয়েছে। তার আগে তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছিল।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম খান মঙ্গলবার রাতে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট জমা দেওয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সূত্রে জানা গেছে, এ রিপোট বুধবার প্রকাশ করা হবে। রিপোর্টটি জেলার কোর্ট ইন্সপেক্টর এবং মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হবে।তবে জেলার সিভিল সার্জন ময়নাতদন্ত রিপোর্টের তথ্যগুলো সংশোধন করতে পারবেন।

এই ঘটনায় আটক পাঁচ আসামি ইতোমধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আসামিরা বর্তমানে টাঙ্গাইল কারাগারে রয়েছে।এরআগে গত ৩১ আগস্ট সাড়ে ৩ টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুর রহিম সুজনের উপস্থিতিতে রূপার লাশ টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় কবরস্থান থেকে উত্তোলন করে পরিবারের সদস্যদের কাছে হন্তান্তর করা হয়।পরে ওইদিনই নিজ গ্রামে বাবার পাশে রূপাকে দাফন করা হয়।ঢাকা আইডিয়াল ল’ কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে (২৭) গত শুক্রবার রাতে চলন্তবাসে গণধর্ষণের পর নৃশংসভাবে হত্যা করে তার রক্তাক্ত মৃতদেহ টাঙ্গাইলের মধুপুর জঙ্গলে ফেলে দেয় ওই পাঁচ পাষণ্ড।পুলিশ ওই কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থানে দাফন করে। পরবর্তীতে ছবি দেখে তাকে সনাক্ত করেন রূপার বড় ভাই হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মধুপুর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে খবর পেয়ে মধুপুর থানার পুলিশ উপজেলার পঁচিশ মাইল এলাকায় বনের মধ্যে দিয়ে যাওয়া সড়কের পাশ থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় অজ্ঞাত এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করে। পরদিন শনিবার টাঙ্গাইল মর্গে লাশের ময়নাতদন্তের পর শহরের কেন্দ্রীয় গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। পরে সিরাজগঞ্জের তারাশ উপজেলার আসানবাড়ি গ্রামের হাফিজুর রহমান মধুপুর থানায় গিয়ে লাশের ছবি দেখে লাশটি তার বোন জাকিয়া সুলতানা রূপা (২৭) বলে সনাক্ত করেন। রূপার স্বজনদের দেওয়া তথ্যর ওপর ভিত্তি করে ময়মনসিংহ-বগুড়া সড়কে চলাচলকারী ছোঁয়া পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো ব-১৪-৩৯৬৩) চালক, সুপারভাইজার ও তিন হেলপারকে আটক করা হয়।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন