শিরোনাম :

ঘর বিক্রয়ের টাকা দিয়ে মেয়ের চিকিৎসা করছেন বাবা


বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৭, ০৭:৪৮ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ঘর বিক্রয়ের টাকা দিয়ে মেয়ের চিকিৎসা করছেন বাবা

নীলফামারী প্রতিনিধি: ফুঁটফুটে শিশু লতিফা আক্তার (৪) তাকিয়ে দেখছেন সবার দিকে। সবে মাত্র কথা বলা শিখছেন সে। কখনও আপন মনে খেলছেন আবার কখন মায়ের কোলে উঠছেন। যেন কিছ্ইু ভাল লাগছে না তার। জন্মের এক বছর পর থেকে কিডনী সংক্রান্ত সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। তার বাড়ী নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার ডালিয়া ছোট খাতা গ্রামের হতদরিদ্র লুৎফর রহমান মাখন ও রাবেয়ার বেগমের ছোট মেয়ে লতিফা আক্তার।

লুৎফর রহমান মাখন ডালিয়া এলাকায় একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। তিন বছর ধরে তার চিকিৎসার করে তার বাবা আজ প্রায় নি:শ্ব। মেয়ের চিকিৎসার যে টুকু চাষের জমি ছিল তাও বিক্রয় করে শেষ করেছে। তার চিকিৎসায় প্রায় ৭ লক্ষ টাকা খরচ হয়। ফলে নিরুপায় হয়ে পড়েন হতদরিদ্র বাবা মা।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কিডনীরোগ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ সহকারী অধ্যাপক ডা: মোবাশ্বের আলম (সুজা) জানিয়েছেন, পরীক্ষা নিরীক্ষার এক পর্যায় ধরা পড়ে শিশুটির দুইটি কিডনী নষ্ট হওয়ার উপক্রম। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রায় ৩ থেকে ৪ লাখ টাকার প্রয়োজন। তার পিতা লুৎফর রহমান মাখন সব কিছু বিক্রি করে অসহায় হয়ে পড়েছেন। তার পক্ষে এত টাকা সংগ্রহ করা অসম্ভব।

 

শিশু লতিফা আক্তারের পিতা লুৎফর রহমান মাখন বলেন, ৩ বছর ধরে মেয়ের চিকিৎসা করতে চাষের জমি, টিনের ঘর বিক্রি করে আজ প্রায় পথের ফকির হয়েছি। মেয়েটি আবারও অসুস্থ হয়ে পড়ায় উপায় না পেয়ে বসবাস রত একটি টিনের ঘর ১৪ হাজার টাকায় বিক্রি করে মেয়েকে নিয়ে পার্বর্তীপুর মিশন হাসপাতালে ভর্তি করান হয়েছে।

চিকিৎসকরা বলছেন তার উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে নেয়া প্রয়োজন। বর্তমানে শিশুটি দিনাজপুরের পার্বর্তীপুর মিশন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। শিশুটির উন্নত চিকিৎসা করাতে অনেক অর্থের প্রয়োজন। তাই বাধ্য হয়ে এক অসহায় পিতা তার নিঃস্পাপ সন্তান কে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা- লতিফা আক্তারের বাবা মোঃ লুৎফর রহমান মাখন, মোবাইল ও বিকাশ- (পার্সনাল) ০১৭৬৬-৩৯৪৯২৮।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন