শিরোনাম :

৯ বছর বয়সী ধর্ষিতার লাশে ৮৬ ক্ষত


রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ০২:০৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

৯ বছর বয়সী ধর্ষিতার লাশে ৮৬ ক্ষত

ডেস্ক প্রতিবেদন: আসিফা বানু, আট বছরের ছোট্ট শিশু।কাশ্মীরি এই ফুলকে তুলে নিয়ে গিয়ে মন্দিরে আটকে রাখা হয়।সেখানেই মাদক দিয়ে অজ্ঞান করে গণধর্ষণ করা হয়।এখানেই থেমে থাকেনি পাষণ্ডরা।পরে তাকে হত্যা করে।জম্মুর কাঠুয়ায় সম্প্রতি এই ধর্ষণ এবং এক বছর আগে উন্নাও গণধর্ষণ নিয়ে গোটা ভারতে তোলপাড় চলছে।এরই মধ্যে সামনে এল আরও একটি বর্বরতম ধর্ষণের ঘটনা।

এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্য গুজরাটের সুরাতের বেস্তান এলাকায় একটি জঞ্জালের স্তূপ থেকে ৯ বছর বয়সী অজ্ঞাত এক কন্যাশিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, বাচ্চাটিকে ধর্ষণের পর খুন করা হয়েছে। তার ছোট্ট শরীরে অন্তত ৮৬টি আঘাতের চিহ্ন মিলেছে।এর মধ্যে বেশ কয়েকটি আঘাত রয়েছে শরীরের স্পর্শকাতর অঙ্গে।

পাঁচ ঘণ্টার দীর্ঘ ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, শিশুটির ওরপর টানা ৮ দিন ধর্ষণ ও নির্যাতন করা হয়েছে।এরপর তাকে হত্যা করা হয়।

সুরাত সরকারি হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান গণেশ গোভিকর বলেন, ‘শিশুটির শরীরের বেশিরভাগ জখম কাঠের কোনো বস্তু দিয়ে আঘাতে সৃষ্ট। নির্যাতনের পর তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘মেয়েটির শরীরের বাইরের অংশে ৮৬টি জখম রয়েছে।এর মধ্যে কিছু জখম এক থেকে ৭ দিন আগের।’

সুরাতের বেস্তান এলাকা থেকে গত ৬ এপ্রিল শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এখন পর্যন্ত তার কোনো পরিচয় জানতে পারেনি।

পুলিশ কর্মকর্তা কেবি ঝালা বলেন, ‘ওইদিন ভোর ছয়টার দিকে প্রাতঃভ্রমণে গিয়ে স্থানীয়রা ওই এলাকার ক্রিকেট স্টেডিয়াম সংলগ্ন সড়কের পাশে জঞ্জালের মধ্যে একটি লাশ দেখতে পায়। পরে খবর দেয়া হলে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। এখন তার পরিচয় জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।’

কাঠুয়া ও উনাও ধর্ষণের ঘটনায় প্রতিবাদ বিক্ষোভের মুখে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘কোনো সভ্য সমাজে এমন ঘটনা ঘটতে পারে না। এর সঙ্গে জড়িতরা কোনোভাবেই ছাড় পাবে না। সমাজ ও রাষ্ট্র হিসেবে এই ধর্ষণের ঘটনায় আমরা সত্যিই লজ্জিত।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশবাসীকে আমি কথা দিচ্ছি, কোনো কালপিটকে রক্ষা করা হবে না। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করা হবে।আমাদের মেয়েরা অবশ্যই ন্যায়বিচার পাবে।’

ইতোমধ্যে কাঠুয়ার ৮ বছরের মুসলিম শিশু আসিফার ধর্ষণ ও খুনের ঘটনাকে ‘ভয়ানক’ আখ্যা দিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস।

তার মুখপাত্র স্টেফানি দুজ্জারিক বলেছেন, ‘আমরা সংবাদমাধ্যম থেকে ঘটনাটা জেনেছি।আশা করি, অপরাধীদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে।’

ওই ঘটনায় কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি রাজ্যের হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখে বিশেষ ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠন করার আবেদন জানিয়ে ৯০ দিনের মধ্যে বিচার শেষ করার প্রস্তাব দিয়েছেন।

কাঠুয়ায় নিহত শিশু আসিফা বানুর মা বলেছেন, ‘একটাই প্রার্থনা, অপরাধীদের ফাঁসি হোক।যাতে অন্য কোনো পরিবারকে এমন দিন দেখতে না হয়।’

হতাশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘অপরাধীরা সাজা না পেলে, অপরাধ তো ঘটবেই।উন্নাওয়ের ঘটনা তো ঘটেছে এক বছর আগে। আন্দোলনের পরে, কোর্টের চাপে গ্রেফতার হলো অপরাধী। প্রশাসনের নড়ে বসতে এত দেরি হবে কেন?’

এছাড়া উন্নাও ধর্ষণে অভিযুক্ত ক্ষমতাসীন বিজেপির এমপি কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারকে ৭ দিন সিবিআই হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। যে মহিলা ধর্ষিতাকে লোভ দেখিয়ে সেঙ্গারের বাড়ি নিয়ে গিয়েছিলেন, তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

এক বছর আগে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যের উন্নাতে ১৬ বছর বয়সী কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়েছিল। এরপর বিজেপির এমপি কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের ভাই মেয়েটির বাবাকে পিটিয়ে জখম করেন এবং জেলে পাঠান। গত সোমবার তিনি মারা যান। এরপরই দুটি ঘটনা নিয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে ভারত।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন