শিরোনাম :

সমানে সমান না হওয়ায় মেয়ের হাত কাটলো বাবা


বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০২:২৮ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

সমানে সমান না হওয়ায় মেয়ের হাত কাটলো বাবা

ডেস্ক: সদ্য বিবাহিত মেয়ে ও জামাইয়ের উপর হামলা চালাল বাবা। ভারতের হায়দরাবাদের প্রাণকেন্দ্রে দিনের আলোর সবার সামনে মেয়ের হাত কেটে নিল সে। জামাইয়ের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। মেয়েটির অপরাধ? সে একজন দলিত পাত্রকে বিয়ে করেছে।

দিনকয়েক আগেই গোটা দেশকে চমকে দিয়েছিল নালগোণ্ডার ভয়াবহ অনার কিলিং-এর ঘটনা। অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর চোখের সামনে খুন করা হয় তাঁর দলিত স্বামীকে। আর এবারের ঘটনা বানজারা হিলসের। ২২ বছরের বি সন্দীপ ও ২০ বছরের মাধবী চারী গত পাঁচ বছর ধরে একে-অপরে ভালোবাসে। দু জনে এক জাতের না-হওয়ায় এই বিয়েতে রাজি ছিল না মাধবীর বাবা ৪২ বছরের মনোহর চারী। তাই গত ১২ সেপ্টেম্বর লুকিয়ে মন্দিরে বিয়ে করে নেয় সন্দীপ ও মাধবী। সন্দীপ একজন দলিত কলেজ ছাত্র আর মাধবী ওবিসি সম্প্রদায়ভুক্ত।

বুধবার মাধবীকে ফোন করে তাঁর স্বামী-সহ ডেকে পাঠায় মনোহর। বলে, সবকিছু মিটমাট করে নেবে। নবদম্পতি খুশি হয়ে স্কুটিতে চড়ে এরাগাড্ডায় গোকুল থিয়েটারের সামনে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। বিকেল সওয়া তিনটে নাগাদ সেখানে পৌঁছে একটি ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাঁদের উপর হামলা চালায় মনোহর।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, কীভাবে আক্রমণ চালায় মনোহর। সে প্রথমে সন্দীপের উপর প্রথম হামলা চালায়। কোনওক্রমে সে নিজেকে বাঁচিয়ে পালালে, মেয়ের উপর নজর পড়ে মনোহরের। সে মেয়ের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বাঁ হাতের নীচের অংশ কেটে নেয়। এরপর আঘাত করে চিবুকে। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, 'ও চিত্‍‌কার করছিল। বলছিল বাবা, আমায় ছেড়ে দাও।'

মেয়েটিকে আরও মারতে গেলে পাশের এক ব্যক্তি মনোহরকে লাথি মেরে ফেলে দেন। এরপর ভয় পেয়ে পালায় মনোহর। পরে তাকে তার শ্যালকের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে বানজারা হিলসের পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, গত পাঁচ দিন ধরে টানা মদ্যপান করেছেন মনোহর।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন