শিরোনাম :

কথা রেখেছেন পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা


শুক্রবার, ৫ এপ্রিল ২০১৯, ০৭:৫১ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

রাজবাড়ী: কথা রেখেছেন রাজবাড়ী জেলার পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম-পিপিএম সেবা। গত ২০১৮ সালের ৫ই মার্চ তিনি রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পর জেলাকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত এবং দৌলতদিয়া ঘাটের সমস্যা নিরসন, বাল্যবিবাহ, নারী নির্যাতন, জঙ্গিবাদ, চাঁদাবাজিসহ অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নিয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে গত এক বছরে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করে সর্বস্তরের জনগণের প্রশংসা অর্জন করেছেন, তার নেতৃত্বে ও নির্দেশে পরিচালিত বিভিন্ন অভিযানে জেলা পুলিশের ভাবমূর্তি যেমন উজ্জ্বল হয়েছে তেমনই তার বিভিন্ন সাহসী পদক্ষেপে, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্য নিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এবছর পুলিশ সপ্তাহে পিপিএম সেবা পদকে ভূষিত হন। এ ছাড়াও ২০১৮ সালের ৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করায় আইজিপি কর্তৃক প্রশংসিত হয়েছেন। 

রাজবাড়ীতে যোগদানের পর সফলভাবে দায়িত্ব পালনের এক বছর অতিবাহিত করেছেন পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম পিপিএম-সেবা। এক বছর পূর্তিতে ৫ই মার্চ সহকর্মীরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। গত ১ বছরে বিভিন্ন অভিযানে তিনি উল্লিখিত বিষয়ে বেশ সফলতা অর্জন করেছেন। জানা গেছে, পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলির দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে এক বছরে তার নেতৃত্বে ৪৭টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১১৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা সহ ৩৭টি অস্ত্র মামলার বিপরীতে ৩৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত আগ্নেয়াস্ত্রের মধ্যে ছিল ২টি বিদেশি পিস্তল, ৩টি রিভলবার, ২৮টি ওয়ান শুটারগান, ৫টি দেশি বন্দুক, ৩টি বিদেশি বন্দুক, ১টি রাইফেল, ৫টি অন্যান্য অস্ত্র, ৪৫ রাউন্ড গুলি ও ৭৩ রাউন্ড কার্তুজ।
অপরদিকে অবৈধ মাদক, ডলার, কষ্টিপাথর উদ্ধারেও সফলতা পেয়েছেন।

এ সংক্রান্তে ৬৮৫টি মামলায় গ্রেপ্তার করা হয় ৭৮৮ জনকে। উদ্ধারকৃত মাদকের মধ্যে রয়েছে ২০ হাজার ৫২৮ পিস ইয়াবা, ২৬.১৫ কেজি গাঁজা, ১৯৫.৮৭ গ্রাম হেরোইন, ১ হাজার ৭৭২ বোতল ফেনসিডিল, ৫ ক্যান বিয়ার, ২৪০ লিটার বাংলা মদ ও ৩৬৩ লিটার চোলাই মদ। এ ছাড়া ১৫ লাখ ৬৮ হাজার ৬৮০ টাকা মূল্যের ১৯৫টি ইউএস ডলার এবং প্রায় ৫০ কোটি টাকা মূল্যের কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার, জেলার কালুখালি উপজেলার পায়তারা মোড় থেকে একটি যাত্রীবাহী বাসে তল্লাশি করে ১৭ লাখ টাকা মূল্যের ৪১ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়াও তার নেতৃত্বে বেশ কয়েকটি ক্রুলেস হত্যা ও ডাকাতি মামলার রহস্য উন্মোচনসহ জড়িতদের গ্রেপ্তার সহ রাজবাড়ী, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা চোর দলের ১০ সদস্যকে গ্রেপ্তার সহ তাদের চুরির কাজে ব্যবহৃত একটি কাভার্ডভ্যান, একটি মাইক্রোবাস, দুটি তালা কাটার হাইড্রোলিক কাটার জব্দ করেন।
উপরোল্লিখিত কার্যক্রম ছাড়াও তার অধীনস্থ পুলিশ সদস্যদের বিপদেও সাহায্য সহযোগিতা করার একাধিক নজির রয়েছে পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম-পিপিএম সেবা-এর। অতি সম্প্রতি নিজে উদ্যোগী হয়ে ব্যক্তিগতভাবে ৫০ হাজার টাকা ও অন্যদের সহযোগিতা নিয়ে জেলার বালিয়াকান্দি থানার পুলিশ কনস্টেবল জাহাঙ্গীর হোসেনের স্ত্রী মাহমুদা বেগম রিতার চিকিৎসার জন্য ২ লক্ষাধিক টাকারও বেশি সহায়তা প্রদান করেন।
উল্লেখ্য, পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম-পিপিএম সেবা গত ২০১৮ সালের ৫ই মার্চ তিনি রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পূর্বে তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার পদে কর্মরত ছিলেন।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন